নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ভর্তি থাকায় অনিয়ম ও অসঙ্গতিে উঠে আসার পরও রাজধানীর সাহাবউদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল রাতে সিলগালা করা হয়নি। রবিবার (১৯ জুলাই) দিবাগত রাতে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, হাসপাতালটিতে কয়েকজন রোগী থাকায় রাতে হাসপাতালটি সিলগালা করা যায়নি। রোগী অন্যত্র শিফট করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। রোগীদের চিকিৎসা নিরবচ্ছিন্ন করতে এবং তাদের যাতে কোনও বিঘ্ন না ঘটে সেদিক বিবেচনা করে হাসপাতালটি সিলগালা করা হয় নি। রোগী খালি করার পর এটি সিলগালা করা হবে।

রবিবার (১৯ জুলাই) বিকালে রাজধানীর গুলশানে সাহাবউদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। করোনা পরীক্ষা নিয়ে ওই হাসপাতালটির বিরুদ্ধে জালিয়াতি করার অভিযোগ উঠে। নেগেটিভ রোগীকে করোনা পজিটিভ বলে হাসপাতালে ভর্তি রেখে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগও পাওয়া যায়। ইতোমধ্যে হাসপাতালটির দুজন কর্মকর্তাকে র‌্যাবের হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

সারোয়ার আলম বলেন, ‘বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম ও অসঙ্গতি পেয়েছি সাহাবউদ্দিন হাসপাতালে। এজন্য প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।’