বিগণবিডি ডেস্ক: বাংলাদেশে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়লেও করোনা হাসপাতালের হাজারও বেড ফাঁকাই থাকছে। করোনা রোগীরা ভয়ে সরকারি হাসপাতালে যাচ্ছেন না। কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরা এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

এমনকি ৪৪ শতাংশেরও বেশি লোক কোভিড-১৯ হেল্পলাইনে কল করতেই ভয় পান। অনেকেই করোনা পজিটিভ হওয়ার ভয়ে হাসপাতালেই যেতে চান না। জাতিসংঘের সহায়তায় ৮০ হাজার লোকের ওপর করা এক সমীক্ষায় এ তথ্য উঠে এসেছে বলে জানায় আল-জাজিরা।

শুধুমাত্র রাজধানী ঢাকাতেই করোনা রোগীদের জন্য আলাদা করা ৬,৩০৫ টি বেডের ৪,৭৫০ টির ব্যবহার হচ্ছে না। করোনার জন্য তৈরি করা দুই হাজার বেডের ফিল্ড-হাসপাতালে রোগী আছেন মাত্র ১০০ জন।

করোনা ভাইরাসের আরেক হটস্পট চট্টগ্রামের কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনর জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোর বেড এখন অর্ধেক পূর্ণ আছে। তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, অনেক রোগী বাড়িতে চিকিৎসা নেয়ার কারণেও বেডগুলো ব্যবহার হচ্ছে না। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক নাসিমা সুলতানা বলেন, বেশিরভাগ রোগীরই হালকা লক্ষণ থাকে। তারা বাসায় বসে টেলিমেডিসিন সেবা নিচ্ছেন। এ কারণেও বেড ফাঁকা থাকতে পারে।

তবে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং ভাইরাসে আক্রান্তরা বলছেন, সরকারি হাসপাতাল থেকে কি পরিমাণ সেবা পাবেন তা নিয়ে মানুষজন উদ্বিগ্ন। দাতব্য চিকিৎসা সংস্থার এক কর্মকর্তা এএফপিকে বলেন, কিছু রোগী কথায় কথায় স্বাস্থ্যকর্মীদের বলছিলেন- হাসপাতালে মরার চেয়ে ঘরে বসেই মরতে চান তারা।